cancel-holiday-new-instruction-of-government
Advertisement

মাত্র কদিন আগেই শেষ হলো রাজ্যজুড়ে মাধ্যমিক পরীক্ষা। ওদিকে দরজায় কড়া নাড়ছে উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষা। আগামী ১৪ই মার্চ, ২০২৩ তারিখে শুরু হতে চলেছে উচ্চমাধ্যমিক। দিনের প্রথম শিফটে হবে উচ্চমাধ্যমিক এবং পরের শিফটে হবে ক্লাস ইলেভেনের অর্থাৎ একাদশ শ্রেনীর ফাইনাল পরীক্ষা। এমতাবস্থায় উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা সংসদের তরফ থেকে বাতিল হলো সমস্ত টিচারদের ছুটি (Cancel Holiday)।

Advertisement

উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষা পরিচালনার ব্যাপারে রাজ্যের পরীক্ষাকেন্দ্র গুলিকে বেশ কয়েক দফা গাইডলাইন দেওয়া হয়েছে। উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা সংসদের তরফ থেকে নির্দেশ দিয়েছে উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষা স্বচ্ছ ভাবে অনুষ্ঠিত করার জন্য কড়া গার্ডের ব্যবস্থা রাখার। এক একটি পরীক্ষার হলে কম করে দুজন টিচারকে থাকতে বলা হয়েছে।

Advertisement

আর ইতিমধ্যেই নিয়োগ দুর্নীতির পর্দাফাঁসের দরুণ হাইকোর্টের নির্দেশে চাকরি গিয়েছে প্রায় ৮০০ এরও বেশি শিক্ষক-শিক্ষকাদের। ফলতই রাজ্যজুড়ে বহু স্কুলে ঘাটতি দেখা দিয়েছে শিক্ষক-শিক্ষিকার। কোনো স্কুলে টিচারের ঘাটতি থেকে থাকলে, পার্শ্ববর্তী স্কুল থেকে শিক্ষক-শিক্ষিকা নিয়ে আসার নির্দেশ দিতে পারে উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা সংসদ।

বিনামূল্যে রেশন পান? ভুলেও করবেন না এই ভুলগুলি, গুনতে হবে মাশুল।

রাজ্যজুড়ে প্রায় ২০০ টিরও বেশি এমন পরীক্ষাকেন্দ্র রয়েছে যেগুলি স্পর্শকাতর, এই স্পর্শকাতর পরীক্ষাকেন্দ্র গুলিতে মেটাল ডিটেক্টর দিয়ে পরীক্ষার্থীদের তল্লাশি করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে, তাছাড়াও পার্শ্ববর্তী কোনো স্কুলের পরীক্ষার্থীরা যদি বিশৃঙ্খলা পরিস্থিতির সৃষ্টি করে তবে সেই স্কুলের অনুমোদন বাতিলও করা হতে পারে, এমনই হুঁশিয়ারি দেওয়া হয়েছে উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা সংসদের তরফ থেকে।

যদিও এবারের উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষাকে কেন্দ্র করে ইন্টারনেট পরিষেবা বন্ধ করতে রাজি নয় উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা সংসদ। তাই স্বচ্ছভাবে উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষা অনুষ্ঠিত করার জন্য শিক্ষক-শিক্ষিকাদের সঠিকভাবে দায়িত্ব পালন করার এবং সতর্ক হওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এছাড়াও ভেনু সুপারভাইজার থেকে শুরু করে প্রতিটি আধিকারিককে গাইডলাইনের মাধ্যমে দায়িত্ব ভাগ করে দিয়েছে উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা সংসদ।

এরকম আরো গুরুত্বপূর্ণ তথ্য সবার আগে পেতে যুক্ত হন আমাদের টেলিগ্রাম গ্রুপে – Link

তাই প্রতিটি স্কুলে যাতে পরীক্ষার হলে গার্ড দেওয়ার জন্য পর্যাপ্ত শিক্ষক-শিক্ষিকা থাকে সেই কারণে এইসময় কোনো শিক্ষক-শিক্ষিকা ছুটি নিতে পারবেন না, খুব জরুরী কারণে যদি ছুটি নিতেও হয় তবুও সেক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট জেলার স্কুল বিদ্যালয় পরিদর্শকদের অনুমতিতে ছুটি নিতে হবে।

উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হওয়ার সময়ে যেহেতু দিনের দুই ধাপেই পরীক্ষা থাকবে, অর্থাৎ প্রথম ধাপে উচ্চমাধ্যমিক এবং পরের ধাপে একাদশ শ্রেণীর ফাইনাল পরীক্ষা থাকবে; তাই স্কুলের বাকি ক্লাসগুলির পঠনপাঠন বন্ধ থাকবে।