tet-recruitment-update-about-the-vacancies-in-various-districts
Advertisement

সদ্য টেটের রেজাল্ট প্রকাশিত হয়েছে। রাজ্য সরকারের তরফে জারি করা পরিসংখ্যান অনুসারে জানা গিয়েছে যে, ২০২২ সালে ডিসেম্বর মাসে যে টেট পরীক্ষার আয়োজন করা হয়েছিল তাদের প্রায় ৭ লক্ষ পরীক্ষার্থী অংশগ্রহণ করেছিলেন। আর এই সমস্ত পরীক্ষার্থীদের মধ্যে ১ লক্ষ ৫০ হাজার ৪৯১ জন পরীক্ষার্থী উত্তীর্ণ হয়েছেন। অর্থাৎ অন্যভাবে বলা চলে, মোট পরীক্ষার্থীর ২৪.৩১ শতাংশ পরীক্ষার্থী টেট পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েছেন (TET Recruitment)।

Advertisement

সমস্ত খবর সবার আগে পেতে আমাদের টেলিগ্রাম গ্রুপে যুক্ত হন – Link

ইতিপূর্বে পশ্চিমবঙ্গ প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের তরফে জানানো হয়েছিল যে, ইতিপূর্বে বহু সংখ্যক চাকরিপ্রার্থী পাশ করলেও ১১,৭৫৬ জন চাকরিপ্রার্থীকে শিক্ষক রূপে নিয়োগ করা হবে। অর্থাৎ যেসমস্ত চাকরিপ্রার্থীরা টেট পাশ করেছেন তারা সকলে চাকরি পাবেন না (TET Recruitment)। তবে কোন জেলাতে কত সংখ্যক শিক্ষককে নিয়োগ করা হবে তা সংক্রান্ত এক বিস্তারিত বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়েছে পশ্চিমবঙ্গ প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের তরফে। এর পাশাপাশি এই বিজ্ঞপ্তিতে ক্যাটাগরি ভিত্তিক শূন্যপদের সংখ্যা এবং প্যারা টিচারদের জন্য কত সংখ্যক শূন্যপদ রয়েছে তাও স্পষ্টত জানানো হয়েছিল পশ্চিমবঙ্গ প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের তরফে।

Advertisement

পশ্চিমবঙ্গ প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের তরকে প্রকাশিত বিজ্ঞপ্তি অনুসারে জানা গিয়েছে যে, শিলিগুড়ি জেলায় মোট ১৮৫ টি শূন্যপদ রয়েছে, অন্যদিকে কোচবিহার জেলায় শূন্যপদ রয়েছে ৪৩৬ টি। এর পাশাপাশি জানানো হয়েছে যে, উত্তর দিনাজপুর জেলায় ৬০২টি এবং দক্ষিণ দিনাজপুর জেলায় ২৬১ টি শূন্যপদে শিক্ষকদের নিয়োগ করা হবে। শিক্ষক নিয়োগের ক্ষেত্রে জলপাইগুড়ি জেলায় মোট ৩৭৬ টি শূন্যপদ রয়েছে। অন্যদিকে, আলিপুরদুয়ারে ১৯৬০ শূন্যপদে শিক্ষক নিয়োগ করা হবে, এমনটাই জানানো হয়েছে বিজ্ঞপ্তি মারফত। শিক্ষক নিয়োগের ক্ষেত্রে মালদা জেলায় ৪৫৪টি শূন্যপদ এবং মুর্শিদাবাদ জেলায় ৬৬৯ শূন্যপদ রয়েছে।

প্রকাশিত হলো আবাস যোজনার নতুন লিস্ট। নিজের নাম চেক করুন।

প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের বিজ্ঞপ্তি অনুসারে জানা গিয়েছে যে, পূর্ব বর্ধমান এবং পশ্চিম বর্ধমান জেলার মধ্যে বিস্তর ফারাক রয়েছে। পূর্ব বর্ধমান জেলায় শিক্ষক নিয়োগের ক্ষেত্রে ৭৮৫ টি শূন্যপদ থাকলেও পশ্চিম বর্ধমানে শিক্ষক নিয়োগের ক্ষেত্রে শূন্যপদ রয়েছে মাত্র ১৮৫ টি। অন্যদিকে, পশ্চিম মেদিনীপুর জেলায় শূন্যপদের সংখ্যা আরো কম। পশ্চিমবঙ্গ প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের তরফে প্রকাশিত বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে যে, পশ্চিম মেদিনীপুরের মাত্র ৮৪ টি শুন্যপদে শিক্ষক নিয়োগ করা হবে। এক্ষেত্রে পশ্চিম মেদিনীপুরে তুলনায় হাওড়া এবং হুগলি জেলা যথেষ্ট এগিয়ে রয়েছে। বিজ্ঞপ্তি অনুসারে জানা গিয়েছে যে, হাওড়া জেলার ৯৭৫টি এবং হুগলি জেলায় ৮৬০টি শূন্যপদে শিক্ষক নিয়োগ করা হবে।

টেটের রেজাল্ট প্রকাশ পেতেই নতুন টেটের কথা জানালো প্রাথমিক শিক্ষা দপ্তর। নিয়োগ নিয়েও আভাস দিলেন তিনি

এর পাশাপাশি আরও জানা গিয়েছে যে, উত্তর ২৪ পরগনা এবং দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলায় যথাক্রমে ৭৮০ এবং ১৩৩৮ টি শূন্যপদে শিক্ষক নিয়োগ করা হবে। অন্যদিকে, শিক্ষক নিয়োগের ক্ষেত্রে ঝাড়গ্রাম জেলায় মোট ৬৯১ শূন্যপদ হয়েছে। কলকাতাতে শিক্ষক নিয়োগের ক্ষেত্রে শূন্যপদের সংখ্যা মাত্র ২৩২ টি। বাঁকুড়া জেলাতে শূন্যপদের সংখ্যা কলকাতার তুলনায় সামান্য বেশি, মাত্র ২৩৮ টি শূন্যপদে বাঁকুড়াতে শিক্ষক নিয়োগ করা হবে। এর পাশাপাশি এই বিজ্ঞপ্তিতে আরো জানানো হয়েছে যে, বীরভূম জেলার ৪৮৬ শূন্যপদে এবং পুরুলিয়া জেলায় ৭৩১ টি শূন্যপদে শিক্ষক নিয়োগ করা হবে।